ইন্টারনেটে কাজ করে অর্থ কিভাবে হাতে পাবেন?

ইন্টারনেটেকাজ করে অর্থ উপার্জনের জন্য আপনার পক্ষে যাকিছু করা সম্ভব সবই আপনিকরলেনযা জানা প্রয়োজন জানলেন, টাকা খরচ করে ইন্টারনেট সংযোগ নিলেন, ফ্রিল্যান্সার হিসেবে আউটসোর্সিং সাইটে গিয়ে কাজ নিলেন, সেটা করে জমাওদিলেনএরপর আপনার হিসেবের পালাআপনি টাকা পাবেন কিভাবেএখানে যেহেতুআপনার সব ইচ্ছাই যথেষ্ট না সেহেতু আগেই হিসেব করে নেয়া ভাল
আগে দেখে নেয়া যাক তারা দেয় কিভাবে
সবচেয়েসহজ পদ্ধতি হচ্ছে ভিসা-মাষ্টারকার্ডের মত ক্রেডিট কার্ডতারা আপনার নামেটাকা জমা দিতে পারে সাথেসাথেই, আপনিও সাথেসাথেই সেটা পাবেনউন্নতদেশগুলিতে মানুষ কেনাকাটা থেকে শুরু করে ট্যাক্সিভাড়া পর্যন্ত দেয়ক্রেডিটকার্ডের মাধ্যমেকাজেই তারা এই পদ্ধতি বেশি ব্যবহার করবে সেটাইস্বাভাবিক
বাংলাদেশেরবাস্তবতা ভিন্নএখানে ক্রেডিট কার্ড নামের একটি বস্তু পকেটে নিয়ে বেড়াতেপারেন, টাকার বদলে সেটা দিতে পারেন নাসেটা থেকে টাকা বানিয়ে সেই টাকানিয়ে দোকানে ঢুকতে হয়
আরেকপদ্ধতি হচ্ছে পে-পল এর মত অর্থ লেনদেনকারী প্রতিস্ঠানের সাহায্য নেয়শুধুমাত্র ইমেইল ব্যবহার করে বিনামুল্যেই সেখানে একাউন্ট খোলা যায়টাকাআপনার একাউন্টে জমা হবেআপনি স্থানীয় ব্যাংক থেকে সেটা উঠিয়ে নেবেনএইপদ্ধতিও তুলনামুলক দ্রুতই
বাংলাদেশেরবাস্তবতা হচ্ছে, বাংলাদেশে পে-পল ব্যবহারে সরকারের অনুমতি নেইপে-পলওয়েবসাইটে বাংলাদেশের নাম খুজে পাবেন নাএবিষয়ে সরকারের সর্বশেষ বক্তব্য, প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছেআপনি এই আশ্বাসের ওপর নির্ভর করে অপেক্ষাকরে জীবন পার করতে পারেন
আরেকপদ্ধতি হচ্ছে অয়্যার ট্রান্সফারওয়েষ্টার্ন ইউনিয়নের মত প্রতিস্ঠানেরমাধ্যমে টাকা গ্রহন করা যায়এই পদ্ধতিও বেশ দ্রুততবে এজন্য টাকা দিতেহয়
আরেকপদ্ধতি হচ্ছে প্রচলিত ব্যাংক চেক গ্রহন করাতারা আপনার নামে চেক পাঠাবেআপনি সেই চেক ব্যবহার করে ব্যাংক থেকে টাকা উঠাবেনএতে সময় বেশি প্রয়োজনহয়, চেকের জন্য আলাদা ফি দিতে হয়সবচেয়ে বড় কথা, সকলে এই পদ্ধতি ব্যবহারকরে নাআপনি যদি গুগলের কাছে টাকা পান তারা আপনার নামে চেক পাঠাবে, ছোটপ্রতিস্ঠান কিংবা ব্যক্তিগত পর্যায়ে সাধারনত এই ঝামেলায় যাবে নাকাজেইআপনার সামনে সুযোগ খুব বেশি নেই
এবারে দেখা যাক যারা ইতিমধ্যে কাজ করছেন তারা কি করেন
কেউকেউ অন্যের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেনঅর্থাত পরিচিত কারো ক্রেডিট কার্ডব্যবহারের সুযোগ থাকলে তার নাম্বার ব্যবহার করে সেখানে টাকা জমা করাতাকেঅবশ্যই এতটা বিশ্বস্ত হতে হয় যে টাকার হিসেবে গড়মিল করবে নাআরেকটি বিষয়হচ্ছে উন্নত দেশগুলিতে সবধরনের লেনদেন যাচাই করা হয়যদিও বিষয়টি অবৈধপর্যায়ে যায় না তাহলেও অনেকেই ঝামেলায় যেতে চান না
পে-পলব্যবহার যেহেতু সহজ বলে অন্য দেশে করা পে-পল একাউন্ট ব্যবহার করেন কেউকেউএখানেও সমস্যা একইআপনার নিজেকেই বিদেশে একাউন্ট করতে হয় অথবা অন্যেরওপর নির্ভর করতে হয়পে-পলের নিয়ম অনুযায়ী একজনের একাউন্ট অন্যজন ব্যবহারনিষিদ্ধতারা জানলে একাউন্ট বন্ধ করে দেবে
বাংলাদেশে যারা কাজ করেন তাদের প্রচলিত একটি পদ্ধতি হচ্ছে মানিবুকারস ব্যবহার করামানিবুকারস (http://www.moneybookers.com) পে-পলের মত একই ধরনের সেবা দেয়তাদের সেবার মানও উন্নত (পে-পলের বিরুদ্ধেনানারকম অভিযোগ রয়েছে)যেহেতু অনেকেই এই পদ্ধতি ব্যবহার করছেন সেহেতুএটাই ভালভাবে জেনে নিন
আপনারপ্রয়োজন স্থানীয় একটি ব্যাংক একাউন্টব্যাংকের কাছে আগে জেনে নিন তারা এইপদ্ধতি ব্যবহার করে কি-নাডাচ-বাংলা ব্যাংক থেকে এই পদ্ধতিতে টাকা উঠানোযায় এটুকু নিশ্চিত করতে পারি
প্রয়োজন একটি ইমেইল এড্রেসclick here to read details

One response to “ইন্টারনেটে কাজ করে অর্থ কিভাবে হাতে পাবেন?

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s